এক ভিসায় ঘুরে আসুন ২৬টি দেশ!!! কিভাবে সেটা সম্ভব??? হ্যাঁ এই অসম্ভব কে সম্ভব করতেই ১৯৮৫ সালে লুক্সেমবার্গের সেনজেন শহরে একটি চুক্তি সাক্ষর করে কয়েকটি ইউরোপীয় দেশ। ইউরোপীয় দেশগুলোকে নিয়ে একটি একীভূত অঞ্চল তৈরি করে সেই দেশগুলোর মধ্যে যাতায়াত সহজ করার লক্ষ্য নিয়ে সেই চুক্তির ধারাবাহিকতাতে সৃষ্টি হয়েছে সেনজেন এলাকা এবং সেনজেন ভিসা। ইউরোপের ২৬ টি দেশ এই সেনজেন অঞ্চলের অন্তর্ভুক্ত তাই সেনজেন ভিসা নিয়েই ৯০ দিনের জন্য আপনি বেড়াতে পারবেন সবগুলো দেশ। ভ্রমনপাগলদের জন্য  এ এক সুবর্ণ সুযোগ।

সেনজেন ভিসার আওতাভুক্ত দেশগুলোর পতাকা। ছবি – সংগৃহীত

সেনজেন ভিসায় আপনি যে দেশ গুলো ঘুরতে পারবেন সেগুলো হল অস্ট্রিয়া, আইসল্যান্ড, ইতালি, এস্তোনিয়া, গ্রিস, চেক রিপাবলিক, জার্মানি, ডেনমার্ক, নেদারল্যান্ড, নরওয়ে, পোল্যান্ড, পর্তুগাল, ফ্রান্স, ফিনল্যান্ড, বেলজিয়াম, মাল্টা, লুক্সেমবার্গ, লাতভিয়া, লিথুয়ানিয়া, স্পেন, স্লোভাকিয়া, স্লোভেনিয়া, সুইজারল্যান্ড, সুইডেন এবং হাঙ্গেরি।

সেনজেন ভিসা নিয়ে ঘুরে আসতে পারবেন এই দেশগুলো। ছবি – সংগৃহীত

সেনজেন ভিসা। এই এক ভিসায় ঘুরে আসুন ২৬টি দেশ। ছবি – সংগৃহীত

এই সবগুলো দেশেই বেড়ানো বা ব্যবসা সংক্রান্ত প্রয়োজনে সেনজেন ভিসা নিয়ে যেতে পারেন বাংলাদেশীরা। সেনজেন ভিসা নিয়ে সর্বোচ্চ ৯০ দিন ইউরোপে অবস্থান করা যায় এবং ভিসার মেয়াদ ছয় মাস। ভিসার মেয়াদ থাকাকালীন সময়ে একই ভিসা ব্যবহার করে বারবার সেনজেন এলাকার দেশগুলোতে প্রবেশ করা যায় তবে সব মিলিয়ে ৯০ দিনের বেশি সেখানে অবস্থান করা যাবে না। নিয়ে নিন সেনজেন ভিসা আর সময় নিয়ে ঘুরে আসুন ইউরোপের অনেক গুলো দেশ।

পুনশ্চ: ঘুরতে গিয়ে যেখানে সেখানে ময়লা আবর্জনা ফেলবেন না। অপচনশীল যেকোন আবর্জনা যেমন পলিব্যাগ, বিভিন্ন রকম প্লাস্টিক প্যাকেট, যে কোন প্লাস্টিক এবং ধাতব দ্রব্য ইত্যাদি নিজেদের সাথে নিয়ে এসে উপযুক্তভাবে ধ্বংস করুন। এই পৃথিবীটা আমাদের অতএব, এটাকে বাঁচিয়ে রাখার দায়িত্বও আমাদের।


আপনার এবং আপনাদের ভ্রমণের অভিজ্ঞতার গল্প, ছবি, জিপিএস ট্রেইল এবং প্রকৃতি সংক্রান্ত যে কোন লেখা পাঠাতে পারেন Living with Forest, পেইজ ইনবক্স, livingwithforest@gmail.com অথবা info@livingwithforest.com এই ঠিকানায়। এছাড়াও আপনার মতামত অথবা তথ্যের প্রয়োজনে লিখতে পারেন আমাদের কন্টাক্ট পেইজ কিংবা ওয়েব পেইজের কমেন্ট বক্সে।